কোন ক্রিয়েটিভ এজেন্সি বেছে নেওয়ার আগে যে ৫ টি বিষয় বিবেচনা করবেন

কোন ক্রিয়েটিভ এজেন্সি বেছে নেওয়ার আগে যে ৫ টি বিষয় বিবেচনা করবেন

আপনি কি একজন ব্যস্ত উদ্যোক্তা? আপনি কি আপনার ব্যবসা পরিচালনা করতে হিমশিম খাচ্ছেন? আপনার এক্সপার্টিস এর কমফোর্ট জোন থেকে বেরিয়ে এসে কি আপনাকে আপনার ব্যবসা ম্যানেজ করতে হচ্ছে? আর যদি আপনি আপনার স্টার্টাপের প্রাথমিক পর্যায়ে থাকেন, তাহলে আপনার জন্য ইন-হাউজ টিম গড়ে তোলাও অনেক ব্যয় সাপেক্ষ্য। সেক্ষেত্রে নামকরা কোন এজেন্সির সহায়তা নেওয়া হবে সাশ্রয়ী এবং আপনার ব্যবসার জন্য লাভজনক। আপনি বাংলাদেশের এমন অনেক বিখ্যাত এজেন্সি বা কোম্পানি পাবেন যারা আপনাকে সেবা দিতে ইচ্ছুক। আপনি কীভাবে বুঝবেন যে কোন ডিজিটাল মার্কেটিং এজেন্সিটি আপনার ব্যাবসার জন্য উপযুক্ত? কোন ক্রিয়েটিভ এজেন্সি বাছাই করার আগে আপনাকে অবশ্যই কয়েকটি বিষয় বিবেচনা করতে হবে। এবং তা আপনি কোন ধরণের ব্যবসায় পরিচালনা করছেন তার উপর নির্ভর করে।

আপনার ওয়েব ডেভেলপমেন্ট/অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট বা ব্র্যান্ডিং/মার্কেটিং অথবা অ্যাডভারটাইজিং যে প্রয়োজনেই হোক না কেন, সেরা ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এবং ডিজিটাল মার্কেটিং কোম্পানি বাছাই করা একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অংশ।
সুতরাং, আপনার মনে একটি প্রশ্ন উঠতে পারে, “আমি কীভাবে সঠিক ক্রিয়েটিভ এজেন্সিটিকে বেছে নেব?” একটু সময় নিন এবং আমাদের আর্টিকেলটি ভালোভাবে পড়ুন! একটু পর আপনি নিজেই সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন, এর জন্য আপনা কি করা দরকার। কারণ এই ব্লগপোষ্টটির উদ্দেশ্যই একটা আপনাকে সম্পূর্ণরূপে কোন ডিজিটাল মার্কেটিং কোম্পানি আপনার প্রজেক্টের জন্য উপযুক্ত কি না সেই বিষয়গুলো সম্পর্কে এক্সপার্ট করে তোলা।

ক্রিয়েটিভ এজেন্সি নির্বাচনের আগে আপনার যা বিবেচনা করা উচিতঃ

ইন্ডাস্ট্রি দক্ষতাঃ

মনে করুন আপনি বাংলাদেশের সেরা ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি খুঁজছেন। আপনি কিভাবে সঠিকভাবে নির্বাচন করবেন? প্রথম জিনিস, আপনাকে কোম্পানির ক্রিয়েটিভ দক্ষতা বিবেচনা করা উচিত। আপনি কোম্পানির এমপ্লয়িদের প্রোগ্রামিং, ডিজিটাল মার্কেটিং বা গ্রাফিক্স ডিজাইনের প্রাসঙ্গিক ক্রিয়েটিভ অভিজ্ঞতা, দক্ষতা এবং জ্ঞান গবেষণা করে তাদের সম্ভাবনা মূল্যায়ন করতে পারেন।

যদি তারা আপনার পছন্দসই এক্সপার্ট দিতে যথেষ্ট সক্ষম না হয় তবে এটি আপনার ব্যাবসার জন্য সঠিক নয়। সুতরাং আমরা আপনার সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে তাদের এজেন্সি বা কোম্পানির প্রাসঙ্গিক দক্ষতা বের করার জন্য আপনাকে উত্সাহিত করবো।
একটি এজেন্সি কি কি সার্ভিস দিচ্ছে সেটা নির্ভর করে তাদের কাজ এবং তাদের প্রিমিয়াম প্রোজেক্ট সরবরাহের মাধ্যমে।বুদ্ধির সাথে বিনিয়োগ করুন, এমন একটি এজেন্সি বেছে নিন যা আপনার ব্যবসা / ব্র্যান্ডের শীর্ষস্থানীয়সেবাগুলি সরবরাহ করার ক্ষেত্রে শীর্ষস্থানীয়।

বৈচিত্র্যময় পোর্টফোলিওঃ

ক্রিয়েটিভ এজেন্সির সাথে চুক্তিবদ্ধ হবার আগে, আপনি সিদ্ধান্ত নেবেন যে এজেন্সিটি আপনার ব্যাবসার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ কিনা তা তার পোর্টফোলিও দ্বারা বিচার করে।

শুধু ভাবুন, আপনি যখন আপনার শরীরের গঠন এবং লাইফস্টাইল এর সাথে মেলে এমন পোশাক কিনতে যান, আপনাকে অবশ্যই স্টক থেকে সেরা পণ্যগুলির একটি বেছে নিতে হবে। বিভিন্ন সংগ্রহের ভিড়ে আপনি এমন পণ্যতে বিনিয়োগ করবেন যা আপনার পক্ষে সবচেয়ে বেশি উপযুক্ত। এবং আপনার এই একই চিন্তাভাবনা আপনার ব্যাবসার ক্ষেত্রেও প্রয়োগ করা গুরুত্বপূর্ণ ।

একজন বুদ্ধিমান ব্যাবসায়ী মালিক হিসাবে প্রথমে আপনার নির্বাচিত সেরা এজেন্সিগুলির পোর্টফোলিওগুলি দেখতে হবে। তারা এখন পর্যন্ত কি ধরণের প্রিমিয়াম সেবা প্রদান করে আসছে, তাদের কাজের প্রক্রিয়া কেমন, কোয়ালিটি কেমন এবং ক্লায়েন্টের সন্তুষ্টি পর্যালোচনা ইত্যাদি, বিশ্লেষণ করে একটি নির্ভরযোগ্য এবং অভিজ্ঞ এজেন্সিতে বিনিয়োগ করুন।

তবে আপনাকে অবশ্যই দেখতে হবে যে, কোম্পনিটির পোর্টফোলিও আপনার ব্যবসার কাঠামোর সাথে কতটা সামঞ্জস্যপূর্ণ এবং পাশাপাশি আপনার ইনভেস্টমেন্ট এর তুলনায় আয় বাড়াতে সহায়ক কিনা। আপনার স্বপ্নের ব্যাবসার উন্নতিতে ক্রিয়েটিভ এজেন্সি গুলি কিভাবে তাদের কাজ সম্পন্ন করতে পারে সে সম্পর্কে আপনার স্পষ্ট ধারণা থাকতে হবে।

আপনার প্রশ্নটি হতে পারে কী সন্ধান করতে হবে ক্রিয়েটিভ এজেন্সিতে? সেটা জানার প্রয়োজনে বিভিন্ন পোর্টফোলিও পর্যালোচনা করে দেখাটাই প্রধান উপায় হবে। এই ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মটিতে আপনার জন্য মূল বিবেচ্য বিষয় বলে মনে করা হচ্ছে। সুতরাং কোনো ফাইনাল চিন্তা করার আগে পোর্টফোলিওটি দেখুন।

মূল সার্ভিস এবং কর্মদক্ষতাঃ

কোনো এজেন্সিতে যাওয়ার সময় আপনাকে বুঝতে হবে যে ব্যাবসার উন্নয়নে ক্রিয়েটিভ ডিজিটাল এজেন্সি কি করে। একটি এজেন্সির মূল সেবাগুলি এবং তাদের ভালো মানের প্রোজেক্টগুলি বিবেচনা করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। প্রতিটি এজেন্সির ডিজাইন টিম, ডিজিটাল মার্কেটিং টিম, বিজ্ঞাপন টিম, ওয়েব ডিজাইন টিম বা ওয়েব ডেভলপমেন্ট টিম তাদের প্রত্যেকের নিজস্ব সেবার তালিকা রয়েছে। আপনি সহজেই একটি এজেন্সির ওয়েবসাইট থেকে তাদের মূল সেবা সম্পর্কে তথ্য পেতে পারেন।

সার্ভিসগুলি কতটা কার্যকর এবং সেগুলি আপনার প্রয়োজনীয়তার সাথে প্রাসঙ্গিক কিনা তা পরীক্ষা করাও গুরুত্বপূর্ণ। কোন ক্রিয়েটিভ এজেন্সি সেরা হওয়া সত্ত্বেও যদি তাদের সার্ভিস আপনার চাহিদা যথাযতভাবে পূরণ করতে না পারে তবে অবশ্যই এটি আপনার পক্ষে উপযুক্ত নয়। কোনো এজেন্সি তাদের প্যাকেজিং পরিকল্পনায় যে সার্ভিস গুলি দিয়েছে সেগুলি আপনার কাঙ্ক্ষিত ব্যবসায়িক প্রকল্পের সাথে পুরোপুরি সম্পর্কিত কিনা তা নিশ্চিত করা হলো মূল বিষয়।

মনে করুন আপনি আপনার বিজ্ঞাপন এজেন্সি প্রোজেক্টটি চালানোর জন্য কোনো স্মার্ট এজেন্সির সন্ধান করছেন। সেক্ষেত্রে প্লটটি তৈরি করতে আপনাকে কোনো বিজ্ঞাপন এজেন্সি নির্বাচন করার মানদণ্ডটি দেখতে হবে। শুধু তাই নয়, আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনাকে আরো এগিয়ে নিতে সেই সার্ভিসগুলির শক্তিও একটি উল্লেখযোগ্য বিবেচ্য বিষয়।

যোগাযোগব্যবস্থাঃ

যোগাযোগ ব্যবস্থাএকটি ডিজিটাল এজেন্সিকে অবশ্যই আপনার পরিকল্পনা, স্বপ্ন  সঠিকভাবে বুঝতে হবে। আপনার ব্যবসার বর্তমান পরিস্থিতি, আপনার স্বল্প-মেয়াদী লক্ষ্য, মধ্য-মেয়াদী এবং দীর্ঘমেয়াদে আপনার ব্যবসায় লক্ষ্য অবশ্যই এজেন্সিকে জানতে হবে। কেবলমাত্র একটি কারণ যা আপনার এবং আপনার এজেন্সিটির মধ্যে একটি দুর্দান্ত পার্টনারশিপ তৈরি করতে সহায়তা করে তা হল যোগাযোগ।

সুতরাং, নিঃসন্দেহে, কোনো এজেন্সি থেকে আপনি যে ধরনের সেবা গ্রহণ করেন, যোগাযোগ সেখানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। সুতরাং নিশ্চিত হয়ে নিন যে তাদের মধ্যে যোগাযোগের ভাল দক্ষতা আছ কিনা। অবশ্যই খেয়াল করতে হবে তারা সহজেই আপনার ব্যবসা বুঝতে পারে কিনা এবং আপনার প্রয়োজন অনুসারে কাজ করতে পারবে।

জরুরী প্রয়োজনে একটি সঙ্কটজনক পরিস্থিতি পরিচালনা করার জন্য ক্রিয়েটিভ এজেন্সির কার্যকর যোগাযোগ খুব ই গুরুত্বপূর্ণ। কখনো কখনো, আপনার ব্যবসাটি ভালোভাবে পরিচালনা করতে আপনার জরুরি সমস্যা সমাধানের প্রয়োজন হতে পারে। সুতরাং, এমন কোনো এজেন্সির সাথে চুক্তিবদ্ধ হোন যারা যে কোনো সময় যোগাযোগ করতে প্রস্তুত এবং  যারা প্রোফেশনাল সম্পর্ক বজায় রাখে।

বাজেট ফ্রেন্ডলি প্যাকেজঃ

যেহেতু আপনি অর্থ ব্যয় করছেন, আপনার বিনিয়োগের বিনিময়ে আপনি কতটা রির্টান পেতে পারেন তাও জানা জরুরি। আপনি সবে শুরু করেছেন বা ইতিমধ্যে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন তাও বিবেচনাধীন। আপনার ব্যবসার পরিচালনার সময় খরচ কমে গেলে আপনার আয় এর মাত্রা বাড়বে।

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে একটি মার্কেটিং এজেন্সি বাছাই করার আগে আমাদের মতামত হলো, আপনার ব্যাবসায় একটা এজেন্সি কতটা ভ্যালু বাড়াবে সেটা খেয়াল করবেন। সাশ্রয়ী মূল্যের বাজেটও আপনার বিবেচনায় রাখা উচিত। একটি চুক্তি এমনভাবে করুন, যাতে এটি ভাল মানের হয়, এবং এর জন্য সময় নিয়ে চিন্তা করতে পারেন।

মনে রাখবেন, একটি সুপরিচিত মার্কেটিংকোম্পারি আপনার ব্যবসায়িক সফলতায় অনেকভাবেই সহযোগিতা করতে পারে। ভালো এজেন্সি মানেই যে খুব বেশি চার্জ নেবে তা নয়, তবে সর্বদা তারা আপনার ব্র্যান্ডকে প্রোমোট করতে তাদের স্ট্রাটেজিক সার্ভিস সরবরাহ করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ থাকবে। মোটকথা, আপনি যত ভাল এজেন্সি নির্বাচন করতে পারবেন, তত বেশি রেভিনিউ আপনার ইনভেস্টমেন্ট থেকে পাবেন।

সার্ভিস প্রোভাইডার এজেন্সিকে পার্টনার ভাবুনঃ

যখন কোনো এজেন্সি আপনার ব্যবসাটি আপনার বিশ্বস্ত অংশীদারের মতো দেখবে তখন কেমন লাগবে? আপনি যদি বাংলাদেশের সেরা ক্রিয়েটিভ এজেন্সি খুঁজে থাকে, তবে কেন ইয়াপ্পোবিডি-কে বিবেচনা করবেন না? আমরা বাংলাদেশ ভিত্তিক একটি গ্লোবাল ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এবং ডিজিটাল মার্কেটিং এজেন্সি যা আপনার ব্যবসাকে একটি ব্র্যান্ড তৈরি করতে দুর্দান্ত ডাটা ড্রিভেন মার্কেটিং স্ট্রাটেজি ফলো করে থাকে। আমাদের সার্ভিসগুলির মধ্যে রয়েছে:

প্রতিটি সার্ভিস আমাদের অত্যন্ত দক্ষ প্রোফেশনাল  দ্বারা সম্পাদন করা হয়। আমাদের ক্রিয়েটিভ বিশেষজ্ঞরা সর্বদা তাদের পেশাদারিত্ব বজায় রাখতে কোনো কাজে কমতি রাখবে না। আমরা আপনার সম্ভাব্য অগ্রহতি সুরক্ষিত করতে অংশীদার হিসাবে আপনার সাথে কাজ করতে বদ্ধপরিকর। সুতরাং, আপনি যদি সাশ্রয়ী মূল্যে প্রিমিয়াম মানের সার্ভিস চান তবে ইয়াপ্পোবিডি-কে আপনার বিবেচনায় আনতেই পারেন।

ক্রিয়েটিভ ইন-হাউজ সার্ভিস টিম প্রতিটি সফল ব্যবসার মালিকের পর্দার আড়ালে কাজ করে। ক্রিয়েটিভ এজেন্সির সমস্ত উদ্ভাবনী বিশেষজ্ঞদের সেসময় সহযোগিতা করা সেই পরিস্থিতিতে আরও সহজ এবং লাভজনক। তাই সামান্য বুদ্ধি দেখিয়ে সহজেই আপনার ব্যবসার সাথে একটি সামঞ্জস্যপূর্ণ এজেন্সি নির্বাচন করুন। আশা করি, উপরোক্ত নির্দেশনাবলী একটি ভালো ক্রিয়েটিভ এজেন্সি নির্বাচনে আপনার সম্ভাব্য ব্যাবসার জন্য  সহায়ক হবে।

 

Facebook Comment