সস্তার ওয়েব ডেভেলপমেন্টে সুরক্ষার বলিদান

সস্তার ওয়েব ডেভেলপমেন্টে সুরক্ষার বলিদান

এখন ফেসবুক সহ যেকোন ধরনের সোস্যাল মিডিয়া গুলোতে একটু সার্ফিং করলেই ডেভেলপমেন্ট এবং ডিজিটাল সার্ভিস নিয়ে এমন সব প্রমোশনাল পোষ্ট দেখতে পাই, তারপর নিজে হতভম্ব হয়ে আধাঘন্টা ভাবতে থাকি, ক্যামনে কি? কিভাবে সম্ভব? ৫০০টাকায় ৯৯৯ টাকায় ওয়েব সাইট তাও আবার প্রিমিয়াম থিম সাথে ফেসবুক বুস্টিং ফ্রি। ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কি আসলেই এত সস্তা? আর এসব পোষ্টে ইন্টারেস্টেড জনতার কমেন্ট-এর ঝড় দেখলেই বোঝা যায় ওয়েব সাইটের মত ব্যবসার গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় নিয়ে আমরা কতটা খাম খেয়ালি এবং আমরা কতটা সিকিউরিটি কনসার্ন এবং আমাদের ডিজিটাল জ্ঞান কতটা সীমাবদ্ধ। আর কিভাবে এসব সস্তার ওয়েব ডেভেলপমেন্টে সুরক্ষার বলিদান আমরা দিয়ে থাকি।

  • এখন এখানে আমার প্রশ্ন হলো এই ধরনের সার্ভিস সম্পর্কে আপনার মতামত কি? 
  • আপনি সত্যি কি এ ধরনের সার্ভিস ‍কোন সার্ভিস প্রোভাইডারের কাছ থেকে প্রত্যাশা করে থাকেন?
  • নাকি এই ধরনের প্রমোশনাল পোষ্ট আপনার মনে নানান ধরনের প্রশ্নের উদয় ঘটায়?
  • নাকি ইতিমধ্যে এই সুযোগ হাতছাড়া না করে, সার্ভিস গ্রহন করে নিজেকে ধন্য করেছেন?

আপনার ভাবনার প্রেক্ষিতে এখানে আমার মন্তব্য থাকবে, আপনি যদি এই ধরনের সার্ভিস প্রত্যাশা করে থাকেন তাহলে আপনি ডিজিটাল ফাঁদে পড়ার দৌড়ে একধাপ এগিয়ে আছেন। আর যদি আপনি এসব সার্ভিস নিয়ে অনেক প্রকার পশ্নের ধাঁধায় পড়ে আছেন তাহলে বলবো আপনি এখনো শঙ্কামুক্ত কিন্তু আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা আছে। আর এসব সার্ভিস নিয়ে ইতিমধ্যে যারা আনন্দে গদ গদ হয়ে গায়ে বাতাস লাগিয়ে ব্যপক চিল করছে, তারা নিজের ব্যবসার গুরত্বপূর্ণ ডেটা সহ তাদের ব্যবসার রেপুটেশন হারানোর খুব কাছাকাছি অবস্থায় বিরাজমান হয়ে আছে। এখন এই অবস্থায় স্বাভাবিক ভাবেই আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে আপনার কি করা উচিৎ আর কি উচিৎ নয়।Website got hacked

এক্ষেত্রে আমি বলবো আপনি নিজেই একটু ভেবে দেখুন তো আসলেই কি এত অল্প খরছে এতকিছু সম্ভব? সেক্ষেত্রে আপনি এবার বলেই বসবেন, তাহলে কিভাবে অনেক প্রতিষ্ঠান এসব সার্ভিস দিয়ে আসছে? আর এতক্ষনে অবশ্যই এত প্রশ্ন আর কনফিউশনের মাঝে আপনিও বিরক্তপ্রায়। এবার একটু স্থীর হয়ে এক কাপ কফি নিয়ে বসুন। আপনার মনে উদয় হওয়া সকল প্রশ্নের উত্তর আমরা এবার ধারাবাহিকভাবে দেওয়ার চেষ্ঠা করবো। আর তবুও যদি কিছু বাকি থেকেই যায় তার জন্য তো আমাদের সার্পোট সেন্টার সব সময় খোলা আছেই। আচ্ছা এবার আজাইরা সবকথা বাদ দিয়ে আপনার মনে উদয় হওয়া সম্ভাব্য সকল প্রশ্নের পয়েন্ট আউট করে নেওয়া যাক।

  1. প্রশ্ন নাম্বার ওয়ানঃ কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান তাহলে কেন এই ধরনের সার্ভিস অফার করে থাকে?
  2. প্রশ্ন নাম্বার দুই: এ ধরনের অফার গ্রহণ করা সত্যিই যুক্তিযুক্ত হবে কিনা?
  3. প্রশ্ন নাম্বার তিন: এ ধরনের অফার এর ক্ষেত্রে আপনার করনীয় কি?
  4. প্রশ্ন নাম্বার চার: এই ধরনের আকর্ষণীয় অফার প্রদানকারী সংস্থা গুলোর প্রধান উদ্দেশ্য কি?
  5. চলুন এবার প্রশ্নের আলোকে উত্তর গুলো খুঁজে বের করা যাক।

আমাদের প্রথম প্রশ্ন ছিল কেন তাহলে ধরনের সার্ভিস বিভিন্ন ধরনের প্রতিষ্ঠানগুলো অফার করে থাকে? 

কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান তাদের প্রতিষ্ঠার প্রাক্কালে তাদের ব্যবসায় অন্তর্ভুক্ত বিভিন্ন ধরনের সেবা বা পণ্যের প্রচার সরূপ এই ধরনেরঅফার ক্যাম্পেইন চালু করে থাকে। তাতে করে তারা প্রাথমিক পর্যায়ে তাদের ব্যবসার পরিচিতির সাথে সাথে তাদের সেলস ফানেল এ রিকারিং কাস্টমার বেইজ তৈরি হয়ে যায়। আসলে যেকোনো ধরনের ফিজিক্যাল প্রোডাক্ট এর ক্ষেত্রে এটি একটি কার্যকরী উপায়। তবে আপনি যদি ডিজিটাল কোন সেবার ক্ষেত্রে এ বিষয়টি বিবেচনা করতে যান তাহলে সে ক্ষেত্রে হিসাব কিন্তু  আলাদা। কেননা বেশিরভাগ ডিজিটাল সেবায় হয়ে থাকে ওয়ান টাইম।পরবর্তীতে একই কাস্টমার আপনার সেবা পুনরায় গ্রহণ করবে কিনা সে নিশ্চয়তা খুবই কম। তাই এ ধরনের সেবা অফারকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অসাধু একটা পন্থা অবলম্বন করার উদ্দেশ্যেই আপনাকে সেবা প্রদানে উদ্বুদ্ধ হয়।

আমাদের দুই নাম্বার প্রশ্ন ছিলো এই ধরনের সার্ভিস নেওয়া আসলেই যুক্তিযুক্ত হবে কি না?

তবে এই ক্ষেত্রে আপানাকে আবার কয়েকটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে,যেমন পূর্ববর্তী সময়ে এমন সেবা গ্রহীতাদের এক্সপেরিয়েন্স কেমন? সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানটি লেজিট কিনা? প্রতিষ্ঠানটি কতদিন যাবৎ তাদের সেবা প্রদান করে আসছে? প্রতিষ্ঠানের স্থায়ী কোন কর্মস্থল আছে কিনা, ইত্যাদি ইত্যাদি। এসব বিষয় পর্যবেক্ষণ করে যদি আপনার মনে হয় প্রতারিত হবার কোন সম্ভাবনা নেই সেক্ষেত্রেও তাদের হিডেন টার্মস অ্যান্ড কন্ডিশান গুলো প্রত্যক্ষভাবে জেনে তারপর সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। 

YappoBD Web Development

আমাদের তিন নাম্বার প্রশ্নের উত্তরটাও প্রায় আগের উত্তরের মতোই

যেহেতু কোন একটি সেবা গ্রহনের ক্ষেত্রে এতগুলো প্রতিবন্ধকতা থাকে তাই আপনি যদি একজন Non-Tech Person হয়ে থাকেন তাহলে এসকল বিষয়গুলোর যথাযথভাবে যাচাই করে নেওয়া আপনার জন্য চ্যালেন্জিং হয়ে যায়। আর যেহেতু এমন চটকদার বিজ্ঞাপন সম্বলিত অফার গুলোতে প্রতারিত হবার ঝুকিঁ বেশী থাকে তাই এক্ষেত্রে আমাদের সাজেশান থাকবে, নিজের ব্যবসাকে নিরাপদ রাখতে দুরত্ব বজায় রাখায় শ্রেয়।

এবার আসা যাক ৪ নাম্বার প্রশ্নের উত্তরে, যা আমাদের প্রশ্ন তালিকার সবচেয়ে গুরত্বপূর্ন প্রশ্ন

এমন চটকদার বিজ্ঞাপনের আলোকে কোন উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে সার্ভিস প্রোমোশন এবং প্রদান করা হয়ে থাকে?

প্রথমত: যা বলবো আদৌ ৫০০৳ বা ১০০০/- টাকায় একটি পূর্নাঙ্গ ওয়েবসাইট তৈরি করে দেওয়া সম্ভব নয়। সুতরাং এর পেছনে বেশ কিছু লুকায়িত বিষয় অবশ্যই আছে বা থেকে যায়। তো এখানে প্রথম যেটা কারণ তা হচ্ছে, এমন সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে আপনাকে যে ওয়েবসাইট তৈরি করে দেওয়া হবে তার একটি সার্বজনীন ফ্রেমওয়ার্ক তৈরি করা থাকে। আপনাকে ওয়েবসাইট দেওয়ার সময় শুধু-মাত্র কপি পেস্ট করে আপনার প্রতিষ্ঠানের নামে রূপান্তরিত করে দেওয়া হবে। আপনার সাইটে নুতুনত্য বলতে কিছুই পাবেন না, যা স্বাভাবিকভাবেই আপনার পছন্দ হবার নয়। আর এক্ষেত্রে আপনি যখন আপনার সাইটকে একটি একক স্বত্তা প্রদান করার আগ্রহ প্রকাশ করবেন, তখন আসবে আসল দামাদামির বিষয়টা। আর তখন আপনি দামাদামিতেও পাত্তা পেয়ে উঠতে পারবেন না কারণ আপনি ইতোমধ্যে আপনার ব্যবসা বা সেবা সংক্রান্ত গুরত্বপূর্ন ডেটা এবং ডোমেইন,হোস্টিং এর এক্সেস সহ অনেক কিছুই শেয়ার করে ফেলেছেন। আর তাই আপনি আপতত নিরুপায়।

দ্বিতীয়ত: যে বিষয়টি চলে আসে তা হলো একটা নির্দিষ্ট সময় পর হটাৎ দেখবেন আপনার সাইট আপনি আর এক্সেস করতে পারছেন না অথবা আপনার সাইট হ্যাক করে সকল ধরনের ডেটা ক্লোন করে নিয়ে আপনার কাছ থেকে একটা মোটা অঙ্কের টাকা ডিমান্ড করা হচ্ছে অথবা আপনা সাইটের সকল স্বত্বাধিকার পরিবর্তন করে তারা নিজের হিসাবে দাবি করে বসে আছে। খুব রিসেন্ট আমাদের এক আমেরিকান প্রবাসী বাংলাদেশী ক্লায়েন্ট এর একটি নিউজ পোর্টাল সাইট তার ডেভেলেপমেন্ট এজেন্সি নিজের বলে দাবি করে সকল এক্সেস পরিবর্তন করে তাকে হেনস্থা করছে। 

আশা করি উপরের পুরোটা বিষয় মনোযোগ দিয়ে পড়লে ‍এতক্ষনে বুঝে গেছেন কেন এসব চটকদার বিজ্ঞাপন নজর না দিয়ে এড়িয়ে চলা উচিত। আর বিভিন্ন ধরনের নতুন নতুন উদয় হওয়া রেপুটেশন বিহীন ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি বা এজেন্সি কেন এবং কিসের আশায় এমন সেবা প্রদান করে থাকে। সুতরাং এমত অবস্থায় আমাদের নিজেদের লোভকে সংবরন করুন। সস্তার আশায় ‍সিকিউরিটিকে কম্প্রোমাইজ করবেন না। এবং আপনার ওয়েবসাইটের সুরক্ষার সাথে আপোষ না করে, রেগুলার ওয়েবসাইট মেইনটেন্যান্স নিশ্চিত করুন। 

Facebook Comment