You are currently viewing সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং কি ও তার গুরুত্ব 

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং কি ও তার গুরুত্ব 

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং হচ্ছে এক ধরনের ডিজিটাল মার্কেটিং কৌশল। প্রতিযোগিতামূলক অনলাইন মার্কেটপ্লেসে আপনার অনলাইন বিজনেস বৃদ্ধির সবচেয়ে ভালো উপায় হলো সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং। এটি আপনার বিজনেসের পণ্য প্রচারের কার্যকর পদ্ধতি। 

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং কিঃ 

ওয়েবসাইটের ট্রাফিক জেনারেট করার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিনগুলো তে ওয়েবসাইটের মার্কেটিং করার যে পদ্ধতি তাকে সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং বলা হয়। সার্চ ইঞ্জিন রিলেটেড দুইটি টার্ম আছে যা সবাই গুলিয়ে ফেলে। টার্ম দুইটি হচ্ছেঃ- 

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিংঃ 

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং হচ্ছে এক ধরনের ডিজিটাল মার্কেটিং। এই পদ্ধতিতে টাকা দিয়ে ওয়েবসাইট কে সার্চ ইঞ্জিনের ফার্স্ট পেজ এ র‍্যাংক করানো হয়। সার্চ ইঞ্জিনগুলোর মধ্যে রয়েছে গুগল, ইয়াহু, বিং ইত্যাদি। তবে এর মধ্যে সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং এর পেইড ভার্সন গুগলেই বেশি লক্ষ্যণীয়। আপনি হয়তো খেয়াল করেছেন গুগলে কোনো কিওয়ার্ড লিখে সার্চ করলে মাঝে মাঝে কিওয়ার্ড এর পাশে এড লেখা থাকে। এগুলোই হলো সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং এর পেইড রেজাল্ট। সার্চ ইঞ্জিন এর ফার্স্ট পেজ এ রেজাল্ট দেখানোর জন্য সার্চ ইঞ্জিনগুলো কে টাকা দিতে হয়। যে যত বেশি টাকা খরচ করবে তার ওয়েবসাইট টি সার্চ ইঞ্জিনে সবচেয়ে উপরে থাকবে। এখানে সিপিসি অর্থাৎ কস্ট পার ক্লিক অনুযায়ী আপনাকে গুগল কে টাকা দিতে হবে। ওয়েবসাইট এর প্রোডাক্ট কতটা দামী তার উপর সিপিসি রেট নির্ধারণ করা হয়। আপনার ওয়েবসাইট এর প্রোডাক্টগুলো দামী হলে সিপিসি রেট ও হাই হবে অপরদিকে প্রোডাক্টগুলো কম দামী হলে সিপিসি রেট কম হবে। এভাবেই গুগল পেইড মার্কেটিং এর সুযোগ দিয়ে থাকে। তবে এক্ষেত্রে নিশ্চিত আপনি ভিজিটর পাবেনই। এমন অনেক প্রতিষ্ঠান রয়েছে যারা তারাতাড়ি ট্রাফিক জেনারেট করার জন্য পেইড এড এর মাধ্যমে তাদের ওয়েবসাইট কে গুগলের ফার্স্ট পেজ এ নিয়ে আসে।

Search Engine Marketing

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং এর ব্যবহার

কিওয়ার্ডগুলোর তালিকা তৈরি করুনঃ 

এখানে কিওয়ার্ড র‍্যাংক করানো অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি ফ্যাক্টর। তাই আপনার ওয়েবসাইট কে গুগলে র‍্যাংক করাতে চাইলে কিওয়ার্ড এর তালিকা করা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। অবশ্যই সঠিক কিওয়ার্ডগুলো কে দক্ষতার সাথে বাঁছাই করুন। 

ওয়েবসাইট অপটিমাইজেশনঃ 

আপনি এমন ভাবে আপনার কন্টেন্টগুলোকে সাজান যেনো একজন গ্রাহক একটি কিওয়ার্ড লিখে সার্চ ইঞ্জিনে সার্চ করলে আপনার কন্টেন্ট টি সবার আগে আসে। এজন্য ওয়েবসাইট টি কে ভালোভাবে অপ্টিমাইজড করা জরুরি। ওয়েবসাইট অপটিমাইজেশন এর সময় খেয়াল রাখতে হবে যেন কন্টেন্ট এ এমন কোনো কিছু না থাকে যা ওয়েবসাইট এর লোডিং স্পিড কমিয়ে দেয়।

ইনবাউন্ড লিংক তৈরিঃ 

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে ইনবাউন্ড লিংক তৈরি করা জরুরি। কেননা ইনবাউন্ড লিংক আপনার ওয়েবসাইট কে গুগলে র‍্যাংক করাতে সাহায্য করে। ইনবাউন্ড লিংক হলো সেই লিংক যা আমরা আমাদের এক আর্টিকেল থেকে ভিজিটর কে আমাদের ওয়েবসাইটেরই অন্য একটি আর্টিকেল এ নিয়ে যাই। সহজ কথায় ইনবাউন্ড লিংক ইন্টার্নাল লিংক হিসেবে অধিক পরিচিত। ইনবাউন্ড লিংক আপনার ওয়েবসাইট কে গুগলে র‍্যাংক করাতে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। 

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং এর গুরুত্বঃ 

ইহা আপনার বিজনেস এর প্রচারের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। যে যে কারণে সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং এর গুরুত্ব অধিক তা নিচে আলোচনা করা হলো। 

ব্র‍্যান্ড অ্যাওয়ারনেস বৃদ্ধি করতেঃ 

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং এর ফলে আপনার বিজনেস এর ব্র‍্যান্ড অ্যাওয়ারনেস বৃদ্ধি করা যায়। ব্র‍্যান্ডের পরিচিতি বাড়ানোর জন্য সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং এ যে পদ্ধতিতে বিজ্ঞাপন দেওয়া হয় তাতে করে ব্র‍্যান্ড অ্যাওয়ারনেস বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। ব্র‍্যান্ড অ্যাওয়ারনেস এর মাধ্যমে আপনার ওয়েবসাইট টি টার্গেটেড কাস্টমারদের কাছে রিচ করবে। আপনার বিজনেস সবার সামনে তুলে ধরতে সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং এর বিকল্প নেই। 

বিক্রি বাড়াতেঃ 

একটা অনলাইন বিজনেস শুরু করার মূল লক্ষ্যই হলো ওয়েবসাইট টি কে যেকোনো উপায়ে র‍্যাংক করিয়ে টার্গেটেড কাস্টমার এর কাছে পৌঁছানো এবং পণ্য বিক্রয় করা। তাই অতি দ্রুত গুগলের ফার্স্ট পেইজ অবস্থান করে এবং টার্গেটেড কাস্টমারদের কাছে পৌঁছাতে সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং অধিক ভূমিকা পালন করে। এক্ষেত্রে সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন ও কার্যকর ভূমিকা পালন করে কিন্তু এক্ষেত্রে সময় বেশি লাগে এবং SEO এক্সপার্ট লাগে। তাই আপনি যদি কম সময়ে আপনার কমার্শিয়াল ওয়েবসাইট টি কে গুগলে র‍্যাংক করিয়ে সেল জেনারেট করতে চান তাহলে সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং সবচেয়ে ভালো। 

দ্রুত কাস্টমারের কাছে পৌঁছাতেঃ 

দ্রুত কাস্টমারের কাছে পৌঁছাতে সার্চ ইঞ্জিনগুলো খুবই কার্যকরী। দ্রুত কাস্টমারের কাছে পৌঁছাতে আপনি সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং অথবা সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন এই দুই টি পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারেন। তবে আপনি যদি খুব দ্রুত টার্গেটেড কাস্টমার এর কাছে পৌঁছাতে চান তাহলে টাকা খরচ করে সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং কে বেঁছে নিতে পারেন। এটি দ্রুত সময়ে আপনার কাংখিত কাস্টমারের কাছে আপনার প্রোডাক্ট পৌঁছে দিবে। 

সহজেই বিজ্ঞাপন পরিচালনাঃ 

পেইড এডগুলো খুব দ্রুত এবং সহজে পরিচালনা করা যায়। গুগল বিজ্ঞাপন পরিচালনা করার জন্য আপনাকে টাইম সেট করে দিবে। আপনি সেই সময়ে বিজ্ঞাপন চালু কিংবা বন্ধ রাখতে পারবেন। বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়েবসাইট এ ট্রাফিক জেনারেট করতে পারবেন। ফলে আপনার বিজনেস এর সেল বাড়বে। 

মার্কেটিং

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং এর বিকল্পঃ 

ই-মেইল মার্কেটিং যেহেতু পেইড মেথড তাই অনেকেই এর বিকল্প পন্থা অনুসরণ করতে চায়। আপনার কাছে যদি এনাফ টাকা না থাকে তাহলে আপনি ই-মেইল মার্কেটিং এর বিকল্প হিসেবে সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন করতে পারেন। সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এ একটু সময় বেশি লাগবে। কিন্তু আপনি যদি একজন SEO এক্সপার্ট দিয়ে আপনার ওয়েবসাইট কে অপ্টিমাইজড করে নেন তাহলে খুব ভালো বেনেফিট পাবেন। 

পরিশেষেঃ

উপরের ফ্রি এবং পেইড মেথড যেটা কে-ই বেঁছে নিন না কেনো উভয়ই একটি ওয়েবসাইট কে র‍্যাংক করিয়ে আপনার প্রোডাক্টগুলো কে টার্গেটেড কাস্টমার এর কাছে পৌঁছে দেয়। আপনি যদি আপনার ওয়েবসাইট কে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এর মাধ্যমে অপটিমাইজড করতে চান এবং একজন দক্ষ SEO এক্সপার্ট হায়ার করতে চান তাহলে আজই  yappobd.com ওয়েবসাইট এর সাথে যোগাযোগ করুন। আমরা আপনার ওয়েবসাইট টি কে একজন দক্ষ SEO এক্সপার্ট দ্বারা অপটিমাইজড করে দিবো এবং পরবর্তীতে যেকোনো ধরনের সমস্যায় আমরা সর্বদা আপনার পাশে আছি । আমরা কাজের প্রতি সর্বদা ডেডিকেটেড। সঠিক সেবা নিন, সুন্দরভাবে বিজনেস গড়ে তুলুন।

Facebook Comment