You are currently viewing লোকাল বিজনেস কি এবং কিভাবে প্রোমোট করা যায়?

লোকাল বিজনেস কি এবং কিভাবে প্রোমোট করা যায়?

করোনাভাইরাস আসার পর থেকে ব্যবসায়ীদের যে দুর্যোগ চলছে তা সত্যিই দুঃখজনক। লকডাউনের জন্য কোনো ব্যবসায়ী তার নিত্য দিনের রোজগার হারিয়েছে। এজন্য অনেক ব্যবসায়ীরই মাথায় হাত। বুদ্ধিমানেরা কিন্তু কখনোই হতাশ হয়ে পরে না। তারা সব সময়-ই সিচুয়েশন হ্যান্ডেল করার স্মার্ট ওয়ে খোঁজে। বুদ্ধিমান তাকেই বলে যে যেকোনো সিচুয়েশনে নিজেকে উপযুক্ত করে গড়ে তোলে। আপনার যদি শহরে বিজনেস থাকে এবং তা লক ডাউনের কারণে বন্ধ হয়ে যায় তাহলে লোকাল বিজনেস কে আপনার বেঁছে নেওয়া উচিৎ। তবে সংকটময় এই সময় টা তে লোকাল বিজনেসে ও পরিবর্তন এসেছে। তাই আপনাকে সর্বপ্রথম লোকাল বিজনেসের পরিবর্তনগুলোর সাথে নিজেকে মানিয়ে নিতে হবে। তারপর আপনার লোকাল বিজনেস স্মার্ট ওয়েতে প্রোমোট করতে হবে। 

লোকাল বিজনেসঃ

লোকাল বিজনেস বলতে আপনার বাসার আশেপাশের বিজনেসগুলো কে বোঝায়। অর্থাৎ আপনার এলাকার স্থানীয় বিজনেসগুলোই হলো লোকাল বিজনেস। এখন মানুষ করোনার ভয়ে তটস্থ, ঘর থেকে বের হতে ভয় পাচ্ছে, তাই ঘরে বসেই এখন কাজ করতে হচ্ছে, এদিকে বড় বড় শপিং মল, রিটেলার শপগুলো বন্ধ। এই সময় তারা সামাজিক দূরত্ব মেনে লোকাল শপগুলো থেকে প্রোডাক্ট কিনছে। আপনি নিজের কথাই খেয়াল করুন। আগে যেখানে আপনি প্রতি ঈদে একটা ভালো ড্রেস কেনার জন্য মেইন শহরের নিউ মার্কেট, বড় বড় শপিং মল থেকে ড্রেস কিনতেন সেখানে এখন আপনি ড্রেস কেনার জন্য সম্পূর্ণ লোকাল মার্কেট এর উপর নির্ভরশীল। শুধু আপনি না বর্তমান সময়ে প্রায় সবাই শপিং থেকে শুরু করে অন্যান্য জিনিস কিনতেও লোকাল মার্কেট এর উপর নির্ভরশীল হয়ে পরছে। মানুষ ঘরবন্দী থাকাকালীন সময় খোঁজে তার আশেপাশে কোনো বিজনেস হাব আছে কি না যার থেকে সে মানসম্মত প্রোডাক্ট টি ক্রয় করতে পারবে। যেহেতু এই সময় টা তে তারা খুব দূরে গিয়ে তাদের পছন্দসই প্রোডাক্ট ক্রয় করতে পারছে না তাই তারা লোকাল রিটেলগুলো কে বেশি প্রাধান্য দিয়ে থাকে। তাই এই সুযোগ টা কে কাজে লাগিয়ে আপনার লোকাল কাস্টমারদের কে আকৃষ্ট করতে হবে। আপনি কি ধরনের প্রোডাক্ট সেল করছেন তা যদি লোকাল কাস্টমাররা জানতে পারে তাহলে আপনাকে কাস্টমার খুঁজতে হবে না বরং তারাই আপনাকে খুঁজে নিবে। আর এই জন্য দরকার আপনার লোকাল বিজনেস এর সঠিক মার্কেটিং। বর্তমানে যেহেতু সবাই অনলাইনে বেশি সময় কাটায় তাই আপনার বিজনেস এর প্রোমোটিং করতে পারেন অনলাইন এর মাধ্যমে। অনলাইন ভিত্তিক প্রোমোটিং এ আপনি আগের থেকে বেশি কাস্টমার পাবেন। 

যেভাবে আপনার বিজনেস কে প্রোমোট করতে পারেনঃ 

আগে যেসব মানুষ ব্যস্ততার জন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় চোঁখ রাখতে পারতো না এখন তারাই করোনা মহামারীর সময়ে টাইম পাস করার জন্য অনেক সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট ওপেন করে বসেছে। আগের তুলনায় এখন সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট বেশি ওপেন করা হচ্ছে বলে সবার অভিমত। আপনার এরিয়ার সকল লোকজন ও নিশ্চয়ই এই সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করছে। তাই আপনি তাদের কে টার্গেট করে আপনার বিজনেস এর প্রচার চালাতে পারেন সোশ্যাল মিডিয়ায় এডভারটাইজিং এর মাধ্যমে। যার মাধ্যমে আপনি আপনার লোকাল কাস্টমারদের কে আপনার বিজনেস সম্পর্কে আপডেট দিতে পারবেন। নিচে আরও কিছু ওয়ে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো যার মাধ্যমে আপনি আপনার লোকাল বিজনেস কে প্রোমোট করতে পারবেন। লোকাল বিজনেস কি এবং কিভাবে প্রোমোট করা যায়?

বিজনেস ওয়েবসাইট ক্রিয়েট করুনঃ 

আপনার লোকাল বিজনেসটি কে সবার কাছে পৌঁছানোর সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো একটি ওয়েবসাইট ক্রিয়েট করা। বিজনেসের কথা চিন্তা করলে সর্ব প্রথম মাথায় আসে অনলাইন ভিত্তিক সাপোর্ট। আপনি হয়তো ভাবতে পারেন, আপনার বিজনেস টি লোকাল মানুষদের জন্য তাহলে ওয়েবসাইট ক্রিয়েট করার কি দরকার। এখানেই আপনার ভুল। কারণ এখন যুগ পাল্টেছে। আপনি আপনার ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে আপনার লোকাল কাস্টমারদের কে আপনার বিজনেস এর যাবতীয় তথ্য সম্পর্কে অবগত করতে পারবেন।  তাই প্রথমেই আপনার লোকাল বিজনেস এর জন্য একটা কমার্শিয়াল ওয়েবসাইট ক্রিয়েট করে ফেলুন। 

স্টোর ম্যাপঃ 

ওয়েবসাইট টি তে স্টোর ম্যাপ বা লোকেশন এড করতে ভুলবেন না। আপনার ওয়েবসাইট এ স্টোরের ম্যাপ এড করার মাধ্যমে আপনার কাস্টমাররা সহজেই আপনার শপটি কে খুঁজে পাবে। একজন অপরিচিত কাস্টমার আই মিন যে আপনার দোকান থেকে প্রথম কিছু কিনতে আগ্রহী সে আপনার স্টোরের ম্যাপ দেখে খুব সহজেই আপনার শপে পৌঁছে যেতে পারবে। তাই স্টোর ম্যাপ ব্যবহার একটি স্মার্ট ওয়ে যার মাধ্যমে শপ্টি কে খুব সহজেই খুঁজে পাওয়া সম্ভব। 

নেম ড্রপিংঃ 

ওয়েবসাইট টি কে লোকালাইজড করতে এর সাথে নেম ড্রপিং করাটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। অনেকে হয়তো এই টার্ম টার সাথে এখনো পরিচিত নন। ধরুন আপনার লোকাল বিজনেস এর শপ টি একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে। আর সেটা কে চেনেনা এমন লোক খুঁজে পাওয়া দুষ্কর।  তাই আপনি আপনার বিজনেস ওয়েবসাইট এর ম্যাপে যখন নেম ড্রপিং করবেন তখন মাথায় রাখবেন যেনো সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম টাও উল্লেখ থাকে। এতে করে একজন কাস্টমার সহজেই আপনার শপ টি কে খুঁজে পাবে। এক্ষেত্রে আপনি ম্যাপে এভাবে আপনার শপের লোকেশন দিতে পারেনঃ- শপ A, অমুক বিশ্ববিদ্যালয়ের অপজিটের বিল্ডিংয়ের দ্বিতীয় তলায়। যেহেতু বিশ্ববিদ্যালয় টি সবার কাছে অধিক পরিচিত তাই এই লোকেশন দেখে যে কেও চাইলে সহজেই আপনার শপটি তে আসতে পারবে। 

প্রোডাক্ট লিস্টিংঃ 

ধরুন আপনার একটি প্রোডাক্ট দরকার তখন আপনি সাধারণত কি করে থাকেন? নিশ্চয়ই মনে মনে ভাবতে থাকেন আপনার যে প্রোডাক্ট টি নিড সেটা লোকাল কোনো শপে আছে কি না। আপনি হয়তো ভাবলেন A দোকানে প্রোডাক্ট টি থাকতে পারে কিন্তু শিওর না। এখন আপনি যে কাজ টি করবেন তা হলো শপটির ওয়েবসাইট ঘুরে আসবেন এটা দেখতে যে প্রোডাক্ট লিস্টিং এ আপনার কাংখিত প্রোডাক্ট টি আছে কি না। তাই একজন বিজনেস ম্যান হিসেবে আপনার উচিৎ আপনার ওয়েবসাইট এর প্রোডাক্টগুলোর লিস্ট নিয়মিত আপডেট করা। 

এখন জন-জীবন হয়ে উঠেছে অনেক আধুনিক তাই কারো যখন কিছুর প্রয়োজন হয় তখন সেটা লিখে গুগলে সার্চ করে।  যেমন ধরুন, একজনের চুল কাটানোর প্রয়োজন হয়েছে। সে তখন গুগলে “হেয়ার সেলুন নেয়ার মি” কিওয়ার্ড টি লিখে সার্চ করবে। তখন তার কাছে যত লোকাল শপ রয়েছে তার তালিকা চলে আসবে। সাথে শপের লোকেশন, নাম্বার, কতক্ষণ খোলা থাকবে ইত্যাদি তথ্য। তারপর একজন কাস্টমার আপনার ওয়েবসাইট থেকে অন্যান্য কাস্টমারদের রিভিউ দেখে নিশ্চিত হবে আপনারা কি রকম সার্ভিস দিয়ে থাকেন। আপনাদের কাজ লোকাল কাস্টমাররা কেমন পছন্দ করে তা রিভিউ এর মাধ্যমে ফুটে ওঠে। 

 তাহলে বুঝতেই পারছেন লোকাল বিজনেস এর জন্য ওয়েবসাইট কতটা ফলপ্রসূ। আর আপনি যদি ঝামেলা নিতে না চান তাহলে আমাদের কাছে রয়েছে সহজ সমাধান । আমাদের রেডিমেড ওয়েবসাইট নিয়ে খুব সহজেই আপনি আপনার ব্যবসার প্রসার ঘটাতে পারেন।

ই-কমার্স ব্যবসায় নারী

সোশ্যাল মিডিয়া প্রোমোশনঃ 

আপনি চাইলে সোশ্যাল মিডিয়া এডভারটাইজিং এর মাধ্যমে আপনার লোকাল বিজনেস কে প্রোমোট করতে পারেন। আবার ফেসবুক গ্রুপ অথবা ফেসবুক পেজ ওপেন করে কাস্টমারদের সাথে কানেক্টেড থাকতে পারেন। মনে রাখবেন শুধু আপনার প্রোডাক্ট এর প্রোমোটিং করলে তারা একঘেয়ে হয়ে যাবে, বোরিং ফিল করবে। তাই তাদের কাছেও জানতে চান আপনার প্রোডাক্টগুলো ব্যবহার করে তারা কেমন সুফল পাচ্ছে। তাই সঠিক ভাবে সোশ্যাল মিডিয়া এডভারটাইজিং করাতে চাইলে আজই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন এবং আপনার কাঙ্খিত সেবা নিন ও চিন্তা মুক্ত থাকুন ।

পরিশেষেঃ 

বিশ্ব পরিস্থিতির সাথে খাপ খাওয়াতে আপনার নিজ এলাকায় বিজনেস শুরু করা একটি বুদ্ধিমানের কাজ। বিজনেস লোকাল হোক অথবা দেশের সব মানুষের জন্য হোক, বিজনেস এর মূল উদ্দেশ্য হলো কাস্টমারদের কাছে পৌঁছানো, তাদের সাথে কানেক্টেড থাকা। আর এ জন্য দরকার কমার্শিয়াল ওয়েবসাইট, ফেসবুক এডভারটাইজিং।  তাই আপনি যদি আপনার লোকাল বিজনেস এর জন্য ওয়েবসাইট কিংবা ফেসবুকে এডভারটাইজ দিতে আগ্রহী হোন তাহলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আমরা আপনাকে আপনার পছন্দ অনুযায়ী কমার্শিয়াল ওয়েবসাইট ক্রিয়েট করে দিবো এবং দেখভালের দায়িত্ব নেবো৷ এক বিশ্বস্ত প্রতিষ্ঠান হিবেবে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। তাই আস্থার সাথে কাজ করিয়ে নিতে চাইলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আমরা সুলভ মূল্যে প্রিমিয়াম কোয়ালিটির ওয়েবসাইট, ফেসবুক এডভারটাইজিং সহ নানা ধরনের ডিজিটাল মার্কেটিং এর সেবা দিয়ে থাকি৷ তাই আপনার ব্যবসার প্রশারতা বাড়াতে আজই যোগাযোগ করুন। 

 

Facebook Comment