You are currently viewing আপনার ব্যবসায় ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রয়োজনীয়তা

আপনার ব্যবসায় ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রয়োজনীয়তা

প্রযুক্তির অগ্রগতির জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং এর ডিমান্ড দিন দিন বেড়েই চলেছে। আশা করা যায়, পরবর্তী ৫০ বছরে এই ডিজিটাল মার্কেটিং লাইফ স্টাইল এ অনেক পরিবর্তন আনবে। তাই যারা বুদ্ধিমানের সাথে ডিজিটাল মার্কেটিং কে ব্যবহার করে অনলাইন বিজনেস শুরু করেছেন তাদের সাধুবাদ জানাই। এমন একটা সময় আসবে যখন কেনা কাটা হয়ে পড়বে অনলাইন ভিত্তিক। মানুষ এখনই প্রায় তাদের কেনা কাটা করার জন্য অনলাইন এর উপর নির্ভর করে থাকে আর করোনা মহামারীর সময় তা বহুগুণে বেড়ে গেছে। তাই আপনার যদি একটি অনলাইন বিজনেস থাকে এবং আপনি যদি আপনার বিজনেস এর পরিচিতি বাড়াতে চান, আপনার প্রোডাক্ট টার্গেটেড কাস্টমার এর কাছে পৌঁছাতে চান কিংবা সেল বাড়াতে চান তাহলে এক্ষেত্রে ডিজিটাল মার্কেটিং অন্যতম ভূমিকা পালন করে। আপনি যদি একজন বিজনেস ম্যান হয়ে থাকেন এবং ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে ব্যবসায় সফলতা পেতে চান তাহলে এই ব্লগ টি আপনারই জন্যে। 

ডিজিটাল মার্কেটিং কিঃ

ডিজিটাল মার্কেটিং হলো ডিজিটাল মিডিয়া এবং ডিজিটাল টেকনোলজি ব্যবহার করে অনলাইন এ কোনো প্রোডাক্ট বা সার্ভিসের মার্কেটিং ক্যাম্পেইন পরিচালনা করা। সহজ অর্থে ডিজিটাল মার্কেটিং হলো অনলাইন বিজনেস এর প্রোডাক্টগুলোর বিজ্ঞাপন প্রচার করা। ১৯৯০ সালে যখন প্রথম সার্চ ইঞ্জিন আর্চি যাত্রা শুরু তখন থেকেই ডিজিটাল মার্কেটিং এর উৎপত্তি হয়। অনলাইন বিজনেস এর ডিজিটাল মার্কেটিং করার বিভিন্ন প্ল্যাটফর্ম রয়েছে। সেই প্ল্যাটফর্ম টি হতে পারে সোশ্যাল মিডিয়া, সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং, সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন, ই-মেইল মার্কেটিং কিংবা কন্টেন্ট মার্কেটিং। আবার যে ইলেকট্রনিক মিডিয়াগুলো রয়েছে যেমনঃ টিভি, রেডিও ইত্যাদি এদের সাহায্যে ও ডিজিটাল মার্কেটিং করা হয় এডভারটাইজিং এর মাধ্যমে। আবার ইলেকট্রনিক মিডিয়ার ভেতরে স্মার্ট ফোন অন্যতম। স্মার্ট ফোন এর সাহায্যে মোবাইল মার্কেটিং অথবা এসএমএস মার্কেটিং করা যায়। এই সব কিছুই একটি বিজনেস এর প্রচার প্রচারণা চালানোর জন্য করা হয়। আর উপরে উল্লেখিত সব কিছুই ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্তর্ভুক্ত। তাহলে বুঝতেই পারছেন ডিজিটাল মার্কেটিং কি! আর একটি অনলাইন  বিজনেস কে স্মার্টলি সবার কাছে পৌঁছাতে পারবেন এই ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর সেক্টরসমূহঃ  

ডিজিটাল মার্কেটিং এর অনেক সেক্টর রয়েছে। তবে এখানে কিছু জনপ্রিয় সেক্টর নিয়ে আলোচনা করা হলো যার মাধ্যমে আপনি আপনার বিজনেস টা কে বড় করতে পারবেন। ডিজিটাল মার্কেটিং এর সেক্টর সমূহ হলোঃ- 

নিচে শুধু গুরুত্বপূর্ণ ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়েই বিস্তারিত আলোচনা করা হলো। এই ডিজিটাল মার্কেটিংগুলো  দ্বারা আপনার অনলাইন বিজনেস এর পাবলিসিটি বাড়ানো সম্ভব। 

কন্টেন্ট মার্কেটিংঃ

“কন্টেন্ট ইজ কিং”। ডিজিটাল মার্কেটিং এর মধ্যে কন্টেন্ট মার্কেটিং অন্যতম। আপনি আপনার বিজনেস এর প্রোমোটিং এর জন্য ইনফোরমেটিভ ভিডিও কন্টেন্ট তৈরি করে আপনার বিজনেস এর ব্র‍্যান্ডিং করতে পারেন। অথবা আপনার ওয়েবসাইট এ সুন্দর করে কন্টেন্ট লিখে সেটা প্রচার করতে পারেন। তবে ওয়েবসাইট এর কন্টেন্টগুলো কে সবার কাছে পৌঁছানোর একটি অন্যতম উপায় সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন। নিচে এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো। 

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনঃ

ডিজিটাল মার্কেটিং এর সেক্টরসমূহের ভেতর সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন অন্যতম। আপনার অনলাইন  বিজনেস এর জন্য যদি একটি ই-কমার্স বিজনেস ওয়েবসাইট থেকে থাকে তাহলে খুবই ভালো। আর যদি না থেকে থাকে তাহলে ইয়াপ্পোবিডি ওয়েবসাইট এর সাথে যোগাযোগ করে দ্রুত সময়ে প্রিমিয়াম কোয়ালিটির রেডি ই-কমার্স ওয়েবসাইট তৈরি করে নিন। কাম ট্যু দা পয়েন্ট! ধরেই নিলাম আপনার একটি বিজনেস ওয়েবসাইট রয়েছে। এখন ওয়েবসাইট টি তে আপনার বিজনেস এর প্রোডাক্টগুলো সাজালেন এবং প্রোডাক্ট এর বিস্তারিত তথ্য উপস্থাপন করার জন্য সুন্দর করে কন্টেন্ট লিখলেন। কিন্তু আপনি যেরকম চেয়েছিলেন সে রকম সেল হচ্ছে না। এর কারণ কি? এর একমাত্র কারন হলো আপনার ওয়েবসাইট টির কন্টেন্টগুলো এস.ই.ও ফ্রেন্ডলি না। আপনি যদি ওয়েবসাইট এর কন্টেন্টগুলো কে গুগলের অ্যালগরিদম মেনে গুগলের ফার্স্ট পেজে র‍্যাংক করাতে পারেন তাহলে আপনার অনলাইন বিজনেসে আগের থেকে অনেক বেশি সেল হবে। আর একটা অনলাইন বিজনেস এর স্বার্থকতা নিহিত তার প্রোডাক্ট বিক্রয় এর মাধ্যমে।  তাই দ্রুত সময়ে আপনার ওয়েবসাইট টি কে কোনো ভালো এজেন্সি থেকে একজন দক্ষ এস.ই.ও এক্সপার্ট দ্বারা অপটিমাইজড করে নিন। আমাদের আছে দক্ষ এস.ই.ও  এক্সপার্ট যার মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য সঠিক ভাবে এস.ই.ও করতে পারেন।

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন কেনো জরুরিঃ

ধরুন আপনি একজন ক্রেতা। তাহলে আপনাকে যদি বলা হয় অনলাইন থেকে  ক নামের লেটেস্ট ওয়াচ টি অর্ডার করতে। তাহলে একজন ক্রেতা হিসেবে আপনি সর্ব প্রথমে কি করবেন? আপনি  ক নামের লেটেস্ট ওয়াচ টি কেনার জন্য সর্বপ্রথমে গুগলে সার্চ করবেন এবং গুগলের ফার্স্ট পেজে যে আর্টিকেল গুলো থাকবে সেগুলোর ভেতরে ক্লিক করে আপনি প্রোডাক্ট টি সম্পর্কে বিস্তারিত জানবেন। তারপর যে ওয়েবসাইট টি সম্পর্কে ভালো তথ্য দিয়েছে এবং আপনার কাছে সব দিক দিয়েই ভালো মনে হয়েছে সেই বিশ্বাসযোগ্য ওয়েবসাইট টি থেকেই আপনার প্রোডাক্ট টি অর্ডার করবেন৷ তাহলে এখানে স্পষ্ট যে সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন করার ফলে একটি ওয়েবসাইট গুগলে র‍্যাংক করে এবং একজন ক্রেতা গুগলের ফার্স্ট পেজের আর্টিকেলগুলো পড়েই কোনো প্রোডাক্ট কিনতে আগ্রহী হয়। তাই ডিজিটাল মার্কেটিং হিসেবে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এর কোনো বিকল্প নেই। 

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিংঃ

সোশ্যাল মিডিয়া বলতে বিভিন্ন প্ল্যাটফর্ম কে বোঝানো হয়ে থাকে। যেমনঃ ফেসবুক, টুইটার, ইন্সটাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপ ইত্যাদি। তবে এর মধ্যে বাংলাদেশ এ জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া সাইট হলো ফেসবুক। আর সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর মধ্যে ফেসবুক এডভারটাইজিং অন্যতম। আপনি আপনার অনলাইন বিজনেস এর জন্য ফেসবুক এডভারটাইজিং তৈরি করে সেটা বুস্টিং এর মাধ্যমে টার্গেটেড কাস্টমার এর কাছে পৌঁছে দিতে পারেন। টার্গেটেড কাস্টমার এর কাছে বিজ্ঞাপন পৌঁছানোর মাধ্যমে আপনার অনলাইন বিজনেস এর মার্কেটিং হবে এবং বিক্রয় বৃদ্ধি পাবে। আমাদের আছে দক্ষ মার্কেটিং  এক্সপার্ট যার মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই আপনার ব্যবসার জন্য সঠিক ভাবে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট করতে পারেন।

মার্কেটিং

ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রয়োজনীয়তাঃ

আপনি এতো সময় যেহেতু এই আর্টিকেল টা মন দিয়ে পড়েছেন যেহেতু ধরেই নিলাম আপনার অনলাইন বিজনেস রয়েছে। এখন এই অনলাইন বিজনেস এর ক্ষেত্রে ডিজিটাল মার্কেটিং কত টা প্রয়োজন সেটাও জেনে নিন। 

মানুষ এখন আর দোকানে গিয়ে ঘুরে ঘুরে কেনা কাটা করে না বরং সেই সময় টা কে কোনো প্রোডাক্টিভ কাজে ব্যয় করে। এই শ্রেণির মানুষ কেনাকাটার জন্য সম্পূর্ণ অনলাইন এর উপর নির্ভরশীল। তাই ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে তাদের কাছে আপনার অনলাইন বিজনেস এর মার্কেটিং করা টা খুব জরুরি। বর্তমান বিশ্বে ২ বিলিয়ন এর বেশি মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে। দিন দিন এই সংখ্যা টা ২বিলিয়ন ছাড়িয়ে যাচ্ছে। আর প্রায় ৫.১১ বিলিয়ন মানুষ মোবাইল ফোন ব্যবহার করে। যত মানুষ মোবাইল ফোন ব্যবহার করবে যত ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ও বাড়বে এবং ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রয়োজনীয়তা বাড়বে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে প্রায় ৫৫% মানুষ কেনা কাটা করে থাকে। তাই আপনার অনলাইন বিজনেস কে সবার কাছে পৌঁছাতে চাইলে বিজনেস এর বিজ্ঞাপন দিন। আর মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে ডিজিটাল মার্কেটিং কে বেঁছে নিন। এর ফলে আপনার বিজনেস সবার কাছে পৌঁছে যাবে এবং আপনার সেল অনেক বেড়ে যাবে। তাই প্রযুক্তির সাথে পাল্লা দিয়ে বিজনেস এর মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে ডিজিটাল মার্কেটিং অগ্রণী ভূমিকা পালন করে। 

পরিশেষেঃ

বর্তমান সময়ে বিজনেস এর মার্কেটিং করা ছাড়া প্রতিযোগিতায় টিকে থাকা অসম্ভব। হয়তো আপনি অনলাইন বিজনেস খুলে হাত গুটিয়ে বসে আছেন কিন্তু আপনারই প্রতিপক্ষ ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে অনলাইন বিজনেস এ সফল হচ্ছে। তাই আপনিও সফল হতে চাইলে আজই ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে আপনার বিজনেস এর মার্কেটিং করান। যেকোনো ধরনের ডিজিটাল মার্কেটিং এর সেবা নিতে যোগাযোগ করতে পারেন ইয়াপ্পোবিডি এর সাথে। আমরা একটি ডিজিটাল মার্কেটিং এজেন্সি। আপনার অনলাইন বিজনেস এর জন্য রেডি মেড ওয়েবসাইট থেকে শুরু করে কিওয়ার্ড এস.ই.ও ফ্রেন্ডলি এমন কি ফেসবুক এডভারটাইজিং সকল সেবা প্রদান করা হয়। তাই ব্যবসায় সফলতা পেতে আমাদের সাথে আজই যোগাযোগ করুন। 

Facebook Comment