You are currently viewing নতুন ওয়েবসাইট বানাতে কত টাকা লাগে: ওয়েবসাইট তৈরির খরচ

নতুন ওয়েবসাইট বানাতে কত টাকা লাগে: ওয়েবসাইট তৈরির খরচ

বর্তমানের ট্রেন্ড বলেন আর প্রয়োজনীয়তা বলেন যে কোন ধরনের নতুন বিজনেস প্লান করার সাথে সাথেই ওয়েবসাইট তৈরির বিষয়টাও চলে আসে। এবং ব্যবসায় অন্যান্য সব বিনিয়োগের সাথে এটাও ভাবতে হয়, একটি নতুন ওয়েবসাইট বানাতে কত টাকা লাগে? ওয়েবসাইট তৈরির খরচ কেমন? ওয়েবসাইট এর ধরন, এবং ফাংশনালিটির উপর ভিত্তি করে একটি নতুন ওয়েবসাইট তৈরির খরচ বিভিন্ন রকম হতে পারে। আর আজকের পোষ্টের মাধ্যমে আমরা আলোচনা করবো বিভিন্ন ধরনের ওয়েবসাইট তৈরির খরচের সবকিছু নিয়ে।

 

ওয়েবসাইট এর বিভন্ন ধরনঃ

প্রথমেই আালোচনা করা যাক ওয়েবসাইট সাধারনত কত ধরনের হয়ে থাকে? কারন আপনাকে নতুন একটি ওয়েবসাইট বানাতে কত টাকা লাগে সেই বিষয়টা বোঝাতে ওয়েবসাইট কত ধরনের হয়ে থাকে সেটাও বোঝানো জরুরী। এবং ওয়েবসাইট এর ধরনের উপর ভিত্তি করে বাজেট এর আকাশ পাতাল পার্থক্য হয়ে থাকে।

ওয়েবসাইট কত ধরনের হয় তা যদি আপনি জানতে চান তাহলে তার উত্তর কখনোই এক হবেনা। কারন ব্যবহার এবং উদ্দেশ্যভেদে প্রায় ৫০ এরও বেশি ধরনের ওয়েবাসইট প্রতিনিয়ত আমরা ভিজিট করে থাকি।

তবে আমরা আজকে আলোচনা করবো সবথেকে জনপ্রিয় ৫ ধরনের ওয়েবসাইট তৈরির খরচ নিয়ে। যেমনঃ

  1. ই-কমার্স ওয়েবসাইট
  2. পার্সোনাল ওয়েবসাইট
  3. পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট
  4. বিজনেস ওয়েবসাইট
  5. ব্লগ ওয়েবসাইট

এই ৫ ধরনের ওয়েবসাইট তৈরি করতে আনুমানিক কি ধরনের খরচ হতে পারে তার একটা ধারনা দেওয়ার চেষ্টা করবো আমরা পুরো আর্টিকেল জুড়ে। তবে তার আগে এমন কিছু খরচ আছে যেগুলো প্রতিটি নতুন ওয়েবসাইট তৈরির সময় দরকার হবেই হবে। যেমনঃ

  • ডোমেইন
  • হোস্টিং
  • থিম/ওয়েব ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট
  • ওয়েবসাইট কন্টেন্ট

web design And Development service

ডোমেইন বাবদ খরচঃ

ওয়েবসাইট এর ঠিকানা (URL) বা নামকেই ডোমেইন বলা হয়ে থাকে। ডোমেইন এর এক্সটেনশন বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে। যেমনঃ .com, .org, .info, .xyz, .io সহ ইত্যাদি। তবে গুরুত্বের উপর ভিত্তি করে ডট কম ডোমেইনকে টপ লেভেল ডোমেইন হিসাবে বিবেচনা করা হয়ে থাকে। এবং ডোমেইন এর ধরনভেদে দামেও  কিছুটা পার্থক্য আছে। ধরনভেদে ডোমেইন এর দাম 0.35$ (৩০ টাকা) থেকে শুরু করে 15$ (১২০০ টাকা) পর্যন্ত হয়ে থাকে। তবে মোট হিসাবকে সহজ করার জন্য আমরা গড় হিসাবে ডোমেইন এর দাম ধরতে পারি ৯০০৳ টাকা।

 

হোস্টিং বাবদ খরচঃ

হোস্টিং এর দামহোস্টিং হলো কোন ওয়েবসাইট এর স্টোরেজ বা পরিচালনার উৎস। কেননা যেকোন ওয়েবসাইটকে ইন্টারনেটে দৃশ্যমান করার জন্য যাবতীয় কন্টেন্ট হোস্টিং এর মাধ্যমে পরিচালনা হয়ে থাকে। অর্থাৎ হোস্টিংকে বলতে পারেন আপনার ওয়েবসাইট এর সিপিইউ (CPU)। হোস্টিং এর ফিচার ও ডাটা প্রসেসিং ক্ষমতার উপর ভিত্তি করে হোস্টিং এর দাম নির্ভর করে। তাই আপনার ওয়েবাসইট এর ধরন এবং প্রয়োনীয়তার উপর ভিত্তি করে আপনাকে বেছে নিতে হবে আপনার কেমন কনফিগারেশনের হোস্টিং দরকার।

তবে দাম যদি জানতে চান, এক্ষেত্রে মোটামুটি মানের কোন হোস্টিং কিনতে আপানাকে দেশীয় টাকায় ৩৫০০ টাকা  গুনতে হতে পারে। আর ভালোর তো শেষ নাই, যত গুড় ঢালবেন তত মিষ্টি হবে।

 

থিম/ ওয়েব ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট খরচঃ

ওয়েবসাইট থিম হলো যেকোন ওয়েবসাইট এর ফাউন্ডেশন বা কমপ্লিট ডিজাইন। অর্থাৎ আপনার ওয়েবসাইটটি দেখতে কেমন হবে তার পূর্নাঙ্গ দৃশ্যমান ধারনা। একটি ওয়েবাসইটকে আপনি কোন থিমের মাধ্যমেও হুবুহু তৈরি করতে পারেন আবার কাস্টম ডিজাইন এর মাধ্যমেও ডেভেলপ করতে পারেন। থিমের মাধ্যমে ওয়েবসাইট তৈরিতে তুলনামুলক খরচ কম এবং কাস্টম ডিজাইনের ক্ষেত্রে খানিকটা বেশি। কেননা বিভিন্ন ধরনের ওয়েবসাইট থিম ফ্রিতেও পাওয়া যায়। তবে প্রিমিয়াম থিমগুলোর গড় দাম 59$ ডালার বা বাংলাদেশী টাকায় ৫০০০ টাকা থেকে শুরু হয়ে থাকে।

আর যদি আপনি আপনার ওয়েবসাইট এর ডিজাইন নিজের মতো করে নিতে চান সেক্ষেত্রে আপনাকে কাস্টম ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট করে নিতে হবে। এক্ষেত্রে আপনার খরচ শুরু হতে পারে আনুমানিক ১০ হাজার টাকা থেকে, সেটি আবার কোন ধরনের ওয়েবসাইট তার উপর ভিত্তি করে।

যেমন, বিজনেস ওয়েবসাইট, পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট, পার্সোনাল ওয়েবসাইট অথবা সাধারন ব্লগ ওয়েবসাইট হলে ১০/১৫ হাজার থেকে শুরু, এবং ই-কমার্স ওয়েবাসইট হলে ২০/২৫ হাজার টাকা থেকে শুরু।

 

ওয়েবসাইট কন্টেন্ট রাইটিং বাবদ খরচঃ

কন্টেন্ট রাইটিংওয়েবসাইট কন্টেন্ট হলো ওয়েবসাইট এর বিভিন্ন ধরনের টেক্সট, অডিও, ভিডিও এবং ছবি যার মাধ্যমে আমরা ওয়েবসাইটে আগত ভিজিটরদের সাথে মিথস্ক্রিয়া স্থাপন করতে পারি বা আমাদের উদ্দেশ্যগুলো বোঝাতে পারি। অথবা এভাবে বলা যেতে পারে, ওয়েব কন্টেন্ট হলো ওয়েবসাইট এর সাথে ওয়েব ট্রাফিক এর যোগাযোগকারী। অর্থাৎ আপনার ওয়েবসাইট এর কন্টেন্ট আপনি যত ভালোভাবে উপস্থাপন করতে পারবেন আপনার ইউজারদের এক্সপেরিয়েন্স তত ভালো হবে এবং তাতে আপনার উদ্দেশ্য সফলের হার ততটাই বেড়ে যাবে।

আপনি হয়তবা ইতিমধ্যেই অনেক শুনেছেন Content Is The King (কন্টেন্টই সর্বেসর্বা)। তবে ওয়েবসাইট এর কিং কে তৈরি করতে মোটামুটি ভালো মানের একটা বাজেট ধরে রাখতে হবে। অথবা আপনি যদি প্লান করে থাকেন নিজের উদ্দেশ্যকে আপনি নিজেই প্রতিফলন ঘটাবেন ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে সেটিও করতে পারেন। তাই নিজে যদি কন্টেন্ট ম্যানেজ করতে পারেন অলাদা কোন খরচ নাই এবং যদি কারো দ্বারা বা কোন ফ্রিল্যান্সার দ্বারা লিখে নিতে চান সেক্ষেত্রে ভালোই খরচা আছে বস।

বাংলা এবং ইংলিশ কন্টেন্টভেদে বাজেট এর অনেকটাই তফাৎ থাকবে। মাঝারি সাইজের কোন ওয়েবসাইটে আনুমানিক ১০ হাজার ওয়ার্ড কন্টেন্ট লাগতে পারে (ব্লগ কন্টেন্ট বাদে)। এবং প্রতি হাজার বাংলা কন্টেন্ট এর জন্য আপনার খরচ হতে পারে ২০০ থেকে ৭০০ টাকা। এবং প্রতি হাজার ইংরেজি কন্টেন্ট রাইটিং এর জন্য আপনার খরচ হতে পারে ৫০০ টাকা থেকে ৩ হাজার টাকা পর্যন্ত।

 

ধরন ভেদে ওয়েবসাইট তৈরির খরচ

এতক্ষন তো আমরা আলোচনা করলাম ওয়েবসাইট তৈরির আবশ্যিক ব্যয়গুলো নিয়ে, যে ব্যয়গুলো আমাদের কোনভাবেই এড়িয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। এবার আলোচনা করবো ধরন এর ভিত্তি করে কোন একটি নতুন ওয়েবসাইট বানাতে কত টাকা লাগে? অর্থাৎ, ই-কমার্স ওয়েবসাইট, বিজনেস ওয়েবসাইট, পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট এবং ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি করতে কেমন খরচ হয়।

 

ই-কমার্স ওয়েবসাইট তৈরির খরচ

ই-কমার্স (e-commerce) শব্দের অর্থ হলো ইলেক্ট্রনিক বাণিজ্য। অর্থাৎ, ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া বা ইন্টারনেট এর মাধ্যমে যে ব্যবসা করা হয়, তাকে ই কমার্স বলে। মোটকাথা আমরা অনলাইনে যেসব ওয়েবসাইটগুলোতে কেনাকাটা করতে পারি সেগুলোই ই-কমার্স ওয়েবাসইট। যেমনঃ দারাজ ডট কম, পিকাবো ডট কম, চাল ডাল ডট কম ইত্যাদি। এখন যদি আপনার প্রশ্ন হয়, দারাজ ডট কমের মত ওয়েবসাইট তৈরির খরচ কেমন তাহলে কিন্তু মুশকিল বস। কেননা এগুলো মাল্টি-ভেন্ডর ই-কমার্স ওয়েবসাইট আর দারাজ ডট কম একদিনে এমন হয় নাই। বছরের পর বছর ডেভেলপমেন্ট এর মাধ্যমে এবং প্রয়োজন অনুসারে বিভিন্ন ফিচার প্রতিনিয়ত যুক্ত করে আজকের এই পর্যায়ে। তবে খরচ এর হিসাব করলে কয়েক মিলয়ন ডলার ধরতে পারেন।

তবে আজকে আমরা হিসাব দিব ব্যক্তি পর্যায়ে পরিচালনার জন্য একটি ই-কমার্স ওয়েবসাইট বানাতে কত টাকা লাগে। তাহলে এবার আগের আনুমানিক হিসাবগুলো যোগ বিয়োগ করে সিম্পল একটা ম্যাথ করে ফেলুন। যেমনঃ ডোমেইন আনুমানিক ৯০০ টাকা + হোস্টিং আনুমানিক ৩০০০ টাকা + ওয়েব ডিজাইন ডেভেলপমেন্ট ২০০০০ টাকা + কন্টেন্ট ৫০০০ টাকা। অর্থাৎ কাস্টম ডিজাইন একটি ই-কমার্স ওয়েসাইট তৈরি করতে খরচ শুরু হবে আনুমানিক ২৫০০০ হাজার থেকে।

 

ই-কমার্স ওয়েবসাইট তৈরির এই বাজেট যদি আপনার জন্য প্রাথমিক পর্যায়ে ব্যবসা শুরু করার জন্য বেশি হয়ে যায় তার জন্য “YappoBD“-এর আছে রেডিমেড ওয়েবসাইট সল্যুশন। যেখানে পেয়ে যাবেন  বাজেটের মধ্যেই মনের মতো  যেকোন ওয়েবসাইট।

 
Readymade Website
 

পার্সোনাল ওয়েবসাইট তৈরির খরচ

নিজের সম্পর্কে বিশ্বকে জানাতে এবং নিজের অ্যাকটিভিটি সম্পর্কে ডেইলি আপডেট দেওয়ার জন্য যে ওয়েবসাইট মেইনটেইন করা হয় সেগুলোই আসলে পার্সোনাল ওয়েবসাইট। পার্সোনাল ওয়েবসাইটে তেমন কোন বিশেষ ফিচার থাকেনা তাই খরচও তুলনামূলক অনেক কম। তাই একটি পার্সোনাল ওয়েবসাইট তৈরির খরচ শুরু হতে পারে আনুমানিক ১০ হাজার টাকা থেকে।

 

পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট তৈরির খরচ

কোন ব্যক্তির সম্পূর্নকৃত কাজ এর অনলাইন রিপ্রেজেন্টেশন এবং মেধা ও দক্ষতা যে ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে তুলে ধরা হয় তাকে পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট বলে। সাধারনত ফ্রিল্যান্সার এবং বিভিন্ন পেশাভিত্তিক মানুষ যারা অনলাইন এর মাধ্যমে তাদের স্কিল, সার্ভিস উপস্থাপন এবং বিক্রি করতে চায় তারা পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট ব্যবহার করে। এধরনের ওয়েবসাইট তৈরির বাজেট নির্ধারন হয়ে থাকে বিভিন্ন ফিচার এর নির্ভর করে। তবে পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট তৈরির বাজেট ১৫ হাজার টাকা থেকে শুরু হতে পারে।

 

বিজনেস ওয়েবসাইট তৈরির খরচ

বিজনেস ওয়েবসাইট বলতে সাধারনত এমন ধরনের ওয়েবসাইটকে বোঝায় যে ওয়েবসাইটে কোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বা কোন কোম্পানির সকল ধরনের তথ্য উপস্থাপিত থাকে। বিজনেস ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে কোন কোম্পানি বা প্রতিষ্টান তাদের পন্য বা সেবা বিক্রয় করে থাকে। অর্থাৎ বিজনেস ওয়েবসাইট হলো ইলেকট্রনিক মিডিয়ার মাধ্যমে সেবা প্রদানের একটি ডাইরেক্ট গেটওয়ে।

অনেক সময় কোন কোন বিজনেস ওয়েবসাইটে ই-কমার্সও সংবলিত থাকে। এবং অন্যান্য ওয়েবসাইট এর চেয়ে ফিচারও একটু বেশি থাকে, তাই বিজনেস ওয়েবসাইট তৈরির খরচও একটু বেশি হয়। মোটামুটি মানের একটি বিজনেস ওয়েবসাইট শুরু করতে আপানার বাজেট রাখতে হবে আনুমানিক ২০ হাজার টাকার মতো।

 

ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরির খরচ

ব্লগ ওয়েবসাইট বলতে এমন ধরনের ওয়েবসাইটগুলোকে বোঝায় যেসব ওয়েবসাইটে যেকোন ধরনের বিষয় নিয়ে ইনফরমেশনাল কন্টেন্ট পাবলিশি করা হয়ে থাকে। সেগুলো হতে পারে সমসাময়িক খবর, বিভিন্ন ধরনের তথ্যমুলক টিপস, নিউজ ইত্যাদি। এধরনের ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে অনলাইনে কন্টেন্ট পাবলিশ করে বিভিন্ন ধরনের অ্যাড পাবলিশার কোম্পানি যেমনঃ গুগল অ্যাসেন্স, ইজোয়িক ইত্যাদির দ্বারা কন্টেন্টকে মনিটাইজ করে আয় করা হয়ে থাকে।

এবার আসা যাক ব্লগিং ওয়েবাসইট তৈরি করতে কত টাকা লাগে? সাধারনত এই ধরনের ওয়েবসাইট ডোমেইন এবং হোস্টিং কিনে কোন একটা ফ্রি থিম ইনস্টল করে কন্টেন্ট পরিবর্তন করেই কাজ শুরু করা যায়। সেক্ষেত্রে আলাদা কোন খরচ পড়েনা ডোমেইন এবং হোস্টিং এর খরচ ছাড়া। তবে ভবিষ্যতে যাতে কোন ধরনের সিকিউরিটি ইস্যুতে পড়তে না হয় তাই কাস্টম ডেপেলপ করে নেওয়াই ভালো। এধরনের একটি কাস্টম ডিজাইন ওয়েবসাইট তৈরির খরচ শুরু হতে পারে ১৫ হাজার টাকা থেকে।

 

আশা করা যায় নতুন একটি ওয়েবসাইট বানাতে কত টাকা লাগে এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে আপনাদেরকে মোটামুটি একটা ধারনা দিতে পেরেছি। তবে আপনাদের যদি কোন বিষয় বুঝতে সমস্যা হয় কমেন্ট এর মাধ্যমে জানাতে পারেন। তাছাড়া প্রফেশনাল মানের কোন ওয়েব ডেভেলপমেন্ট সার্ভিস প্রয়োজন হলে যোগাগোগ করতে পারেন YappoBD এর সাথে। ধন্যবাদ

 

Website Maintenance Service

Facebook Comment