You are currently viewing ই-কমার্স বিজনেস ওয়েবসাইট কেমন হওয়া উচিৎ

ই-কমার্স বিজনেস ওয়েবসাইট কেমন হওয়া উচিৎ

একটি নতুন ব্যবসা দাড় করাতে গেলে সর্ব প্রথম দরকার হয় একটি ওয়েবসাইট। সুন্দর এবং সাবলীল একটি ওয়েবসাইট যদি আপনার বিজনেস এর জন্য থাকে তাহলে বিজনেসের প্রোডাক্ট দ্রুত সেল হয়ে যাবে, আপনি অনেক বেশি টার্গেটেড কাস্টমার পাবেন। একটি বিজনেস এর মেইন টার্গেট হচ্ছে প্রোডাক্টগুলো কাস্টমারদের কাছে পৌঁছিয়ে সেল জেনারেট করা। তাই একজন বিজনেস ম্যানের ও অবশ্যই ই-কমার্স ওয়েবসাইট সম্পর্কে বেসিক ধারণা থাকা আবশ্যক।

একজন নতুন ব্যবসায়ী কিংবা উদ্দ্যোক্তা যখন একটি ই-কমার্স বিজনেস ওয়েবসাইট কোনো এজেন্সির কাছ থেকে করিয়ে নিতে চায় তখন সচরাচর এজেন্সি থেকে জানতে চাওয়া হয় “আপনার কেমন ক্যাটাগরির ওয়েবসাইট লাগবে,কি কি Requirement  আছে।” আপনি যেহেতু একজন নতুন উদ্দ্যোক্তা তাই আপনার ই-কমার্স বিজনেস ওয়েবসাইট সম্পর্কে তেমন ধারণা নাও থাকতে পারে এটি কেমন হওয়া উচিৎ। তাই অজ্ঞতার জন্য আপনি তাদের কে বেসিক ইনফরমেশন ছাড়া অন্য কোনো requirement দিতে পারলেন না। তবে আজকের আর্টিকেল পড়ার পর আর এমন টা হবে না। একটি ই-কমার্স ওয়েবসাইট কেমন হওয়া উচিৎ তা নিচে আলোচনা করা হলো।

রেডি ই-কমার্স

রেস্পন্সিভ ই-কমার্স বিজনেস ওয়েবসাইটঃ

আপনার ওয়েবসাইটটি সকল  ডিভাইসে ভালো করে দেখানোর জন্য অর্থাৎ কোনো ধরনের জুম, সোয়াইপ করা ছাড়া সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করার জন্য এইচ টি এম এল এবং সি এস এস ব্যবহার করে যে ধরনের ওয়েব ডিজাইন করা হয় তাকে রেস্পন্সিভ ওয়েব ডিজাইন বলে। সহজ ভাষায় বলতে গেলে এইচ টি এম এল এবং সি এস এস ব্যবহার করে যে ওয়েবসাইট এর কন্টেন্ট গুলো  তৈরি করা হয় তা  বিভিন্ন ডিভাইস এর স্ক্রিন অনুযায়ী সংকুচিত, প্রসারিত এবং আকার পরিবর্তিত হয়। উদাহরণ এর মাধ্যমে বিষয়টি ক্লেয়ার করা যাক। ধরুন আপনার একটি কম্পিউটার আছে এবং আপনার বন্ধুর একটি স্মার্ট ফোন রয়েছে। আপনারা দুইজন-ই একটি ওয়েবসাইটে ঢুকলেন। এখন ওয়েবসাইট টি আপনার কম্পিউটার থেকে খুব সহজেই আপনি পড়তে পারছেন কিন্তু আপনার বন্ধুকে ওয়েবসাইট টি পড়ার জন্য স্ক্রিন জুম করতে হচ্ছে। এর কারণ কি বলতে পারেন? কারণ ওয়েবসাইট টি শুধু মাত্র এইচ টি এম এল ডিজাইন দ্বারা ডেভেলপ করা। আপনার বন্ধুর যেহেতু ওয়েবসাইট টি পড়তে কষ্ট হচ্ছে সেহেতু স্বভাবতই সে ওয়েবসাইট টি থেকে বের হয়ে যাবে।  আপনারা দুইজন-ই এবার আরেকটি ওয়েবসাইট এ প্রবেশ করলেন এবং এই ওয়েবসাইট এর কন্টেন্ট গুলো আপনারা দুইজন-ই খুব ভালো ভাবে পড়তে পারলেন। কারণ এই ওয়েবসাইট এর ডিজাইন এইচ টি এম এল এবং সি এস এস ব্যবহার করে ডেভেলপ  করা।  সি এস এস ব্যবহার করে ডিজাইন করা ওয়েবসাইটটি কেই সহজ ভাষায় রেস্পন্সিভ ওয়েব ডিজাইন বলে। রেস্পন্সিভ ওয়েব ডিজাইন সকল ডিভাইস এই ভালো ভিউ দেয়। অর্থাৎ একটি ওয়েবসাইট এ যদি আপনি আপনার কম্পিউটার থেকে প্রবেশ করেন তাহলে এটি কম্পিউটার ভিউ এ দেখাবে আবার সেম ওয়েবসাইটটি তেই যদি আপনি আপনার স্মার্ট ফোন দিয়ে ঢোকেন তাহলে এটি জুম করার প্রয়োজন নেই এমনকি কন্টেন্ট গুলো ভেঙ্গে যাওয়ার ও ভয় নেই। ট্যাবলেট দিয়ে ঢুকলেও আপনি ভালো মত কন্টেন্ট গুলো দেখতে পারবেন। অর্থাৎ এটি সকল ডিভাইস এই সুন্দর মত ভিজিবল। তাই দিন যত যাবে সার্চ ইঞ্জিন এ রেস্পন্সিভ ওয়েব ডিজাইনের ওয়েবসাইট এর সংখ্যা টা ও বাড়বে। তাহলে বুঝতেই পারছেন একটি ই-কমার্স ওয়েবসাইট অবশ্যই রেস্পন্সিভ হতে হবে।

ইউজার ফ্রেন্ডলিঃ

বিজনেস ওয়েবসাইট টি ইউজার ফ্রেন্ডলি হতে হবে। অর্থাৎ, ইউজার যখন আপনার ওয়েবসাইট টি ভিজিট করবে তখন যেনো সে কম্ফোর্ট ফিল করে। যে কালার গুলো আছে সেগুলো যেনো শালীন হয়।খুব বেশি চোখে লাগে এমন কালার ইউজ না করাই ভালো। 

ফাস্ট লোডিং ওয়েবসাইটঃ

ওয়েবসাইট টি অবশ্যই ফাস্ট লোডিং হতে হবে। ধরুন কোন ভিজিটর একটি কিওয়ার্ড লিখে গুগলে সার্চ করলো এবং সেটা আপনার ওয়েবসাইট এর কিওয়ার্ড এর সাথে মিলে গেলো। তখন সে যদি আপনার ওয়েবসাইট টি ভিজিট করতে যায় এবং আপনার ওয়েবসাইট টি লোড হতে ২-৩ মিনিট সময় নেয়, তাহলে আপনি ভিজিটর হারাবেন। ওয়েবসাইট লোডিং স্পিড সব সময় ১-৩ সেকেন্ডের ভেতর রাখতে হয়। খেয়াল রাখুন আপনার বিজনেস ওয়েবসাইট টি যেনো লোডিং হতে বেশি সময় না নেয়। স্লো ওয়েবসাইট এর কারণে আপনি প্রচুর পরিমাণে ভিজিটর হারাবেন এবং আপনার সেল ও কমে আসবে। 

ইজি নেভিগেশন/ মেন্যুঃ

আপনার ওয়েবসাইট এর কোনো লিংক কিংবা মেন্যু তে যেনো ইজিলি একসেস করা যায় সেদিকে খেয়াল রাখুন। ধরুন, আপনার একটি কাস্টমার আপনার ওয়েবসাইট এ গিয়ে সম্প্রতি যে অফার টা দিয়েছেন সেটা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে চাইলো। এখন সে যদি অফার টি খুঁজেই না পায় তাহলে সে বুঝবে কিভাবে আপনি কি অফার দিয়েছেন। তাই প্রেজেন্টেশন সুন্দর রাখা উচিৎ। 

পেমেন্ট গেটওয়েঃ

একজন কাস্টমার যেন পেমেন্ট করতে গিয়ে ভোগান্তিতে না পরে সেদিকে খেয়াল রাখুন। একেক সময় দেখা যায়, ভিজিটর ওয়েবসাইট এ প্রবেশ করে পেমেন্ট ইইন্টিগ্রেশন এর সময় দেখে সেটা টেম্পোরারি আনএভেইলেবল হয়ে আছে। এজন্য ভালো হোস্টিং দিয়ে আপনার ওয়েবসাইট টি কে হোস্ট করা জরুরি।

SEO অপটিমাইজডঃ

আপনার ওয়েবসাইট টি অবশ্যই ভালো এস.ই.ও এক্সপার্ট দ্বারা অপটিমাইজেশন করান। কারণ সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন হলো একটি ওয়েবসাইটের প্রাণ।  আপনার ওয়েবসাইট যদি সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজড ফ্রেন্ডলি হয় তাহলে আপনি সার্চ ইঞ্জিন গুলো তে আপনার ওয়েবসাইট টি কে র‍্যাংক করাতে পারবেন। আপনার ওয়েবসাইট এ ভালো প্রোডাক্ট থাকলো কিন্তু সেটা গুগলে র‍্যাংক করাতে না পারলে আপনার প্রোডাক্ট সেল হবে না। সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এর মাধ্যমে একটি ওয়েবসাইট কে গুগলের সকল নিয়ম মেনে গুগলের ফার্স্ট পেজে র‍্যাংক করানো হয়। আর গুগলের অ্যালগরিদম মেনে যদি আপনার বিজনেস ওয়েবসাইট টি কে গুগলে র‍্যাংক করানো হয় তাহলে খুব দ্রুত আপনার ওয়েবসাইট টার্গেটেড কাস্টমার এর কাছে পৌঁছে যাবে এবং সেল আগের থেকে বহুগুণ বেড়ে যাবে। তাই আপনার উচিৎ ভালো এস.ই.ও এক্সপার্ট দ্বারা আপনার ওয়েবসাইট কে অপটিমাইজড করা। আর এই এস.ই.ও সার্ভিস সাশ্রয়ী খরচে ইয়াপ্পোবিডি এর কাছে থেকে নিতে পারেন।

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন

সোশ্যাল মিডিয়া লিংকঃ

আপনার ই-কমার্স বিজনেস ওয়েবসাইট এ অবশ্যই সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার এর অপশন টি চালু রাখবেন। অনেক সময় দেখা যায় যেনো তেনো ওয়েব ডেভেলপার দ্বারা ওয়েবসাইট ডেভেলপ করলে তারা শুধু ওয়েবসাইট এ ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটসঅ্যাপ, ইন্সটাগ্রাম এর আইকন গুলো দিয়ে দেয় কিন্তু লিংক করে দেয় না। এই বিষয় টা অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে যেনো তারা লিংক করে দেয়। কারণ সোশ্যাল মিডিয়ায় আপনার প্রোডাক্ট এর লিংক শেয়ার করার মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন আপনার প্রোডাক্টগুলো সম্পর্কে তাদের অভিমত কি। তাই সোশ্যাল মিডিয়ার সাথে আপনার ওয়েবসাইট লিংক আপ একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। 

পরিশেষেঃ

একটি ই-কমার্স বিজনেস কে র‍্যাংক করাতে যেরকম একটি ওয়েবসাইট এর গুরুত্বপূর্ণ অত্যধিক তেমনি একটি ই-কমার্স বিজনেস কে নষ্ট করে দিতে একটি নিম্ন মানের ওয়েবসাইট যথেষ্ট। তাড়াহুড়া করে যেকোনো লোকের কাছ থেকে কিংবা এজেন্সির কাছ থেকে ওয়েবসাইট বানিয়ে নিলেন আর ব্যবসায় দ্রুত উন্নতি হয়ে যাবে এমন টা কল্পনাও করবেন না। কারণ খারাপ হোস্টিং, ভালো এস.ই.ও এক্সপার্ট দিয়ে ওয়েবসাইট কে অপ্টিমাইজড না করালে আপনার ওয়েবসাইট টি গুগলে কখনোই র‍্যাংক করবে না। ফলস্বরূপ, আপনার বিজনেস এ লাল বাতি! তাই আমি রিকমেন্ড করবো আপনি YappoBD থেকে আপনার ই-কমার্স বিজনেস ওয়েবসাইট টি তৈরি করে নিতে। আমাদের এজেন্সি তে আছে দক্ষ এস.ই.ও এক্সপার্ট, উন্নত হোস্টিং, সাথে রয়েছে পুরো টিম যারা আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করা থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের সমস্যায় ডেডিকেটেড সাপোর্ট দিয়ে যাবে। তাই আর দেরি না করে আজই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন এবং আপনার চাহিদা অনুযায়ী সুলভ মূল্যে প্রিমিয়াম কোয়ালিটির ওয়েবসাইট তৈরি করে নিন। সেবা নিন, ব্যবসা বাড়ান।

Facebook Comment